কনসার্টের স্থান নির্ধারণ নিয়ে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রক্টরের সাথে নেতাকর্মীদের বাগবিতণ্ডা

কুবি প্রতিনিধি।।
কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন নেতাকে মারধরের ঘটনায় বিচারের দাবিতে পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী কনসার্টের আয়োজন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সদ্য বিলুপ্ত কমিটির নেতাকর্মীরা। তবে প্রক্টর কাজী ওমর সিদ্দিকীর অভিযোগ, আন্দোলনকারীরা অনুমতি ছাড়াই রাস্তা আটকে কনসার্টের আয়োজন করে এবং স্থান পরিবর্তনের আহ্বান জানালে প্রক্টরের সাথে “শিক্ষার্থীসুলভ” আচরণ করেননি তারা। তবে প্রক্টরের এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন কনসার্টের আয়োজকরা।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর কাজী ওমর সিদ্দিকী রানা বলেন, ‘প্রথমত তারা অনুমতি নেয়নি কনসার্ট করার জন্য। এজন্য রাস্তা না আটকিয়ে মুক্তমঞ্চে কনসার্ট করতে বলি। তখন তারা আমাদের সাথে উত্তেজিত হয়ে কথাবার্তা বলে। যা শিক্ষার্থীসুলভ আচরণ না।’

বৃহস্পতিবার (১৬ মার্চ) বিকাল সাড়ে চারটার দিকে এই ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, ছয়টি অনুষদের রাস্তা বন্ধ করে শাখা ছাত্রলীগের সদ্য বিলুপ্ত কমিটির নেতাকর্মীদের একটি কনসার্টের আয়োজন করতে দেখা যায়। এসময় প্রক্টরিয়াল বডি এসে তাদেরকে অন্যত্র কনসার্ট করার জন্য আহ্বান জানান। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের বিলুপ্ত কমিটির নেতা ইমাম হোসেন মাসুম এবং তাহারাতবির হোসেন পাপন মিয়াজীকে স্থান নির্ধারণের বিষয়ে প্রক্টরিয়াল বডির সাথে বাগবিতণ্ডায় জড়াতে দেখা যায়।

এ ঘটনার সময় উপস্থিত সহকারী প্রক্টর মাহমুদুল হাসান রাহাত বলেন, তাদের আচরণ শিক্ষার্থীসুলভ ছিল না। তারা অনেকটাই এগ্রেসিভ ছিল সে সময়।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকা ছাত্র পরামর্শক ও নির্দেশনা দপ্তরের পরিচালক ড. মুহাম্মদ হাবিবুর রহমান বলেন, তারা কনসার্ট করবে কিন্তু প্রক্টর কিংবা ছাত্র পরামর্শক ও নির্দেশনা দপ্তর থেকে কোন অনুমতি নেয়নি। এমনকি ছাত্র পরামর্শক দপ্তরকেও ইনফর্ম করেনি। সে সময় তারা তর্কাতর্কি করছিল।

এ ব্যাপারে তাহারাতবির হোসেন পাপন মিয়াজী বলেন, আমরা তেমন কিছুই করি নাই। স্যার আসছেন, স্যারের সাথে আমরা কথা বলছি। এটুকুই।

     আরো দেখুন:

পুরাতন খবর

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯  

You cannot copy content of this page