দেবীদ্বারে পত্রিকায় প্রকাশিত একটি সংবাদ নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, গুলিবর্ষণ !

এ আর আহমেদ হোসাইন, দেবীদ্বার প্রতিনিধি।।
দেবীদ্বারে একটি দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের জের ধরে দু’পক্ষের বাকবিতন্ডা ও সংঘর্ষে অন্তত ৬/৭জন আহত এবং ২ রাউন্ড গুলিবর্ষণের সংবাদ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটে রবিবার বিকেল পৌনে ৫টায় দেবীদ্বার পৌর এলাকার দক্ষিণ ভিংলাবাড়ি গ্রামে। এসময় দেবীদ্বার থানার উপ-পরিদর্শক(এস,আই) মোঃ ওমর ফারুকের নেতৃত্বে একদল পুলিশ পরিস্থতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

আহত অহিদ সরকারের পুত্র ও দেবীদ্বার সুজাত আলী সরকারী কলেজ’র বিবিএ দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মোঃ পায়েল সরকার(২২) ও নজরুল ইসলাম’র পুত্র সাইফুল ইসলাম(১৮)কে দেবীদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। অপর দিকে প্রতিপক্ষের আহত লুৎফর রহমানের পুত্র মোঃ সালমান(২০) ও আওলাদ হোসেনের পুত্র রিফাত(১৯)কে রোববার রাত পৌনে ৭টায় দেবীদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করাতে আসলে প্রতিপক্ষের লোকদের বাঁধাদান ও হুমকীর মুখে সালমান ও রিফাতকে তার স্বজনেরা সরিয়ে নেয় বলে জানা যায়। এদিকে সংবাদ পেয়ে রিফাত ও সালমানকে হাসপাতালে ভর্তি করাতে শ্রমিক লীগ উপজেলা সাধারন সম্পাদক কাউছার হয়দার এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে দেবীদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোঃ আরিফুর রহমান একদল পুলিশ নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসেন। পরে রাত ৮টায় আহতদের খুঁজে এনে ভর্তি করা হয়।

দক্ষিণ ভিংলাবাড়ি গ্রামের লুৎফর রহমান জানান, আজকের দৈনিক যুগান্তর পত্রিকায় ‘প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ন প্রকল্প দেবীদ্বার: জেলা উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদকের বাঁধায় কাজ বন্ধ।’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদ নিয়ে আমার পুত্র ইষ্ট ওয়েষ্ট ইউনিভার্সিটির বিবিএ অধ্যয়নরত ছাত্র সালমান মোস্তাকিম আশিষ(২২) তার ফুফাত ভাই কোম্পানীগঞ্জ বাজারের ফল ব্যবসায়ি রিফাত হোসেন(১৯)’র সাথে দক্ষিণ ভিংলাবাড়ি গ্রামের বদিউল আলম বদু’র ছেলে জামির হোসেনের সাথে কথাকাটাকাটি হয়। এসময় সালমান মোস্তাকিম আশিষ তাকে বলে, মিথ্যা নিউজটা না করে সত্যটা অর্থাৎ ‘শতবছরের পুরনো খেলার মাঠ বন্ধ ও খাল ভরাট করে আশ্রয়ন প্রকল্প করায় সাত গ্রামের লোকজন নিয়ে বাঁধা দিলেন জেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক। এ শিরোনামেও সংবাদটি লিখতে পারত।

এসব কথপোকথন ও তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে জামির হোসেন ও তার সঙ্গী-সাথিদের নিয়ে একই এলাকার আব্বাস মিয়ার পুত্র জাহাঙ্গীর হোসেন(১৮), অহিদ সরকারের পুত্র ও দেবীদ্বার সুজাত আলী সরকারী কলেজ’র বিবিএ দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মোঃ পায়েল সরকার(২২), হারুন মিয়ার পুত্র আলীম(২০)সহ কয়েকজন মিলে সালমান মুত্তাকিম ও রিফাতের উপর হামলা চালিয়ে মারাত্মক আহত করে। পুলিশের উপস্থিতিতে এ হামলা হয় এবং এসময় হামলাকারীদের পক্ষে ২ রাউন্ড গুলিবর্ষনেরও সংবাদ পাওয়া গেছে বলেও তিনি জানান।

দক্ষিণ ভিংলাবাড়ি গ্রামের সরকার বাড়ির নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক যুবক(৪০) জানান, প্রতিপক্ষ সিএনজি ষ্ট্যাশনের জিবি’র টাকা থেকে চাঁদা চাওয়াকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ হয়, এ ঘটনার জের ধরে সালমান মুত্তাকিম ও রিফাতের নেতৃত্বে তাদের সমর্থকরা ক্ষুব্ধ হয়ে পান্নারপুল এলাকায় হামলা চালিয়ে একই এলাকার নজরুল ইসলামের ছেলে মোঃ সাইফুল ইসলাম(১৮), অহিদ সরকারের ছেলে মোঃ পায়েল সরকার(২২) মারাত্মক আহত করে। তিনি আরো বলেন, ঘটনার সময় প্রতিপক্ষ গুলিবর্ষণ করেছিল।

এ ব্যপারে রাত সাড়ে ৮টায় দেবীদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোঃ আরিফুর রহমান ও দেবীদ্বার থানার উপ-পরিদর্শক(এস,আই) মোঃ ওমর ফারুকের সাথে সর্বশেষ পরিস্থিতি এবং থানায় মামলা হয়েছে কিনা তা জানতে সেল ফোনে কথা বলার চেষ্টা করি। জবাবে উপ-পরিদর্শক(এস,আই) মোঃ ওমর ফারুক বলেন, এখন কথা বলা যাবেনা।

     আরো দেখুন:

পুরাতন খবর

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১