কুমিল্লায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৪

মোঃ জহিরুল হক বাবু।।
কুমিল্লায় পৃথক দুটি সড়ক দূর্ঘটনায় একই পরিবারের দুই জনসহ মোট চার জন নিহত হয়েছে। জেলা মনোহরগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ২জনসহ ৩জন নিহত হয়েছে।

সকালে কুমিল্লা-নোয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়কের বিপুলাসার ইউনিয়নের বিহড়া নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মঙ্গলবার সকাল সোয়া নয়টার দিকে একুশে এক্সপ্রেসের একটি বাস হিমাচল এক্সপ্রেসের একটি বাসকে অভারটেক করার চেষ্টা করলে একুশে এক্সপ্রেসের ধাক্কায় একটি অটোরিকশা দুমড়েমুচড়ে যায়। এসময় অটোরিকশায় থাকা রুহুল আমিন ও সেলিনা বেগম নামের এক দম্পতি ঘটনাস্থলে মারা যান। পরে হাসপাতালে নেয়ার পথে মায়মুনা আক্তার নামের আরেক কলেজ ছাত্রীও মারা যায়। নিহত ৩জনই বিপুলাসার ইউনিয়নের সাইকচাইল গ্রামের বাসিন্দা।

গুরুতর আহত অবস্থায় রিকশা চালক খোকনকে উদ্ধার করে কুমিল্লার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

দুর্ঘটনার পর তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহতদের লাশ ও দুর্ঘটনা কবলিত অটোরিকশাটি উদ্ধার করে নাথেরপেটুয়া প্ুিলশ তদন্তকেন্দ্র নেয়া হয়েছে।

এদিকের রাত সাড়ে ৩টার দিকে সংবাদ পরিবহন সংস্থা চাদনী পরিবহনের একটি মাইক্রোবাসকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সদর দক্ষিন উপজেলার পদুয়ারবাজার এলাকায় অজ্ঞাত গাড়ির চাপা দিলে চালক লিটন নিহত হয়।

নিহত লিটন (৫৫) বি-বাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার ডুবাচাইল গ্রামের মৃত কবিরুল ইসলামের পুত্র।

হাইওয়ে ময়নামতি থানার এসআই খোরশেদ আলম বলেন, চট্টগ্রামগামী পত্রিকাবাহী মাইক্রোবাসটিকে প্রথমে পেছন থেকে একটি অজ্ঞাতনামা গাড়ি ধাক্কা দেয়, পরে মাইক্রোবাসটি সামনের অপর একটি কাভার্ডভ্যানের সাথে ধাক্কা লেগে মাইক্রোবাসটি দুমড়ে মুচড়ে গিয়ে ভেতরে থাকা চালক লিটনসহ অন্যরা আটকা পড়ে।

হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে তাদের কুমেক হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চালক লিটন মারা যায়। আহতদের অবস্থাও আশংজনক।

     আরো দেখুন:

পুরাতন খবর

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  

You cannot copy content of this page