চৌদ্দগ্রামে জামিনে এসে বাদীর পরিবারকে প্রাণনাশের হুমকি, বাড়ীঘর ভাংচুর

মনোয়ার হোসেন, চৌদ্দগ্রাম (কুমিল্লা) প্রতিনিধি:
কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে তানজিনা আক্তার রুবি হত্যা মামলার অন্যতম আসামী উপজেলার মুন্সীরহাটের পেঁছাইমুড়ি গ্রামের মৃত সিরাজ মিয়ার ছেলে চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ী হিরণ মিয়া জামিনে মুক্তি পেয়ে ভিকটিমের পরিবারকে ক্ষতিসাধনসহ প্রাণনাশের হুমকি দেয়ার অভিযোগ উঠেছে।

এ বিষয়ে নিহত রুবির পিতা ইব্রাহীম সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করে বলেন, রুবি হত্যা মামলার অন্যতম আসামী হিরণ জামিনে এসে গত ডিসেম্বরে আমার বাড়ীঘর ভাংচুরসহ পরিবারের লোকজনের উপর হামলা চালিয়েছে। হামলার ঘটনায় আমার স্ত্রী গুরুতর আহত হয়েছে। এ ঘটনায় আমি আদালতে একটি মামলা দায়ের করি। তারপর থেকে এখনও হিরণ এবং ওই মামলার অন্য আসামী এবং তাদের পরিবারের লোকজন আমাকে বিভিন্ন সময় ভয়ভীতি দেখিয়ে হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছে। আমার ছোট মেয়ে মাদরাসায় যাতায়াতকালে হিরণ ও তার সহযোগিরা তাকে ডিস্টার্ব করে। মাদরাসায় যাওয়ার পথে তাকে কল করতে বলে কাগজে মোবাইল নম্বর লিখে ছুড়ে মারে এবং তার ক্ষতিসাধন করবে মর্মে নানা হুমকি দিচ্ছে প্রতিনিয়ত। মাদরাসা পরিচালনা কমিটি সভাপতি মফিজুর রহমান ও অধ্যক্ষ মাওলানা আবু নোমান সাহেবকে বিষয়টি মৌখিকভাবে জানিয়েছি। যে কোনো মুহুর্তে সে আমার পরিবারের ক্ষতিসাধন করতে পারে। এছাড়া আমার বড় মেয়ে রুবি হত্যার রহস্য এখনো উদঘাটিত হয়নি। এ বিষয়ে আমি উপজেলা প্রশাসনসহ পুলিশ প্রশাসনের কার্যকর পদক্ষেপ কামনা করছি।

পেঁছাইমুড়ি গ্রামের মফিজুর রহমান, সেলিম, মাহবুবুল হক সর্দারসহ অনেকেই জানান, রুবি হত্যা মামলার আসামী হিরণ জামিনে এসে রুবির পরিবারের উপর হামলা চালিয়ে তাদেরকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য হুমকি-ধমকি দিচ্ছে। গ্রামবাসীকেও তারা হুমকি দিচ্ছে। এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে রুবি আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা চৌদ্দগ্রাম থানার এসআই উগ্যজাই মারমা বলেন, ‘ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে কীটনাশকের আলামত পাওয়া গেছে। মামলাটির চার্জশীট এ মাসেই আদালতে দাখিল করা হবে। জামিনপ্রাপ্ত আসামী হিরণ কর্তৃক রুবির পরিবারের উপর হামলার ঘটনায় আদালতে আরেকটি মামলা করেছে ভুক্তভোগির পরিবার। ওই মামলার প্রতিবেদনও শীঘ্রই আদালতে দাখিল করা হবে’।

     আরো দেখুন:

পুরাতন খবর

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  

You cannot copy content of this page