দেবীদ্বারে টিকা নিতে এসে খালি হাতে ফিরছেন অনেকে

এ আর আহমেদ হোসাইন, দেবীদ্বার প্রতিনিধি।।
সারা দেশের ন্যায় কুমিল্লার দেবীদ্বারেও বিনামূল্যে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে গনটিকা কার্যক্রম পরিচালিত হয়েছে। শনিবার সকাল ৯টা থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত উপজেলার ১৫টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার ১৬টি ওয়ার্ডে ওই কার্যক্রম পরিচালিত হয়।

চলতি টিকা কার্যক্রমের প্রথম দিনে প্রতিটি ওয়ার্ডে ২৫ উর্ধ বয়সী ৬শত নিবন্ধিত গ্রাহকের মধ্যে ওই টিকা প্রদান করা হয়। যদিও নিবন্ধীতদের বাহিরে কোন কোন ওয়ার্ডে অনিবন্ধীত প্রায় পাঁচ হাজার গ্রাকের উপস্থিতি দেখা যায়। কোথাও কোথাও উপচেপড়া ভীড়ের কারনে টিকা প্রদান কর্মসূচী ব্যহত হয় এবং নিবন্ধন ব্যতীত শুধু জাতীয় পরিচয়পত্র নিয়ে এসে টিকা দেয়াকে কেন্দ্র করে কোথাও কোথাও স্বাস্থ্য কর্মীদের সাথে বাকবিতন্ডায় জড়িতে পড়ার সংবাদ পাওয়া যায়।

উপজেলা সুবিল ইউনিয়নের ওয়াহেদপুর টিকাদান কেন্দ্রে কার আগে কে টিকা দেবেন সেই প্রতিযোগীতায় বিব্রতকর পরিস্থিতি লক্ষ করা যায়। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবু তাহের ও সুবিল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক গোলাম সারোয়ার মুকুল ভ‚ঁইয়ার সহযোগীতায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে দেখা যায়।

ওই কেন্দ্রের টিকাদান কর্মসূচী দায়িত্বপালনকারী স্বাস্থ্য সহকারী সুমন কবির, মোঃ জামাল হোসেন ও মাজেদা বেগম জানান, ভিড়ের চাপে আমাদের দাড়িয়ে দাড়িয়ে গ্রাহকদের টিকা দিতে হয়েছে।

সুবিল গ্রামের আলী হোসেন, আব্দুল আলীম ও মমতাজ বেগম বলেন, আমাদের মাইকিং করে জানিয়ে দেয়া হয়েছে, আইডি কার্ড নিয়ে আসলেই টিকা দেয়া যাবে, এখানে এসে শুনি নিবন্ধনের বাহিরে টিকা দেয়া হবেনা। খালিহাতে ফিরে যেতে হচ্ছে আমাদের।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আহাম্মেদ কবির বলেন, গত টিকাদান কর্মসূচীতে আমরা মাইকিং করেও মানুষের মধ্যে আগ্রহ বাড়াতে পারিনি। এবার আমাদের বরাদ্ধকৃত ৫হাজার ২১৩জন পুরুষ ও ৪হাজার ৩৮৭জন মহিলার জন্য ৯হাজার ৬০০টিকার বিপরীতে ৪০/৫০ হাজার গ্রাহক সমাবেশ ঘটেছে। আমাদের লোকজন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান, গন্যমান্য ব্যক্তিদের সহায়তায় টিকাদান কর্মসূচী সম্পন্ন করতে পেরেছি।

     আরো দেখুন:

পুরাতন খবর

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  

You cannot copy content of this page