বরুড়ার শাকপুরে প্রবাসীকে পিটিয়ে আহত, নারী সদস্যদের শ্লীলতাহানীসহ অলংকার লুট

স্টাফ রিপোর্টারঃ
কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার শাকপুর ইউনিয়নে মাদকসহ একাধিক মামলার আসামী বাচ্চু মিয়ার অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী। শাকপুর এলাকার বাসিন্দা মৃত আলী মিয়ার ছেলে বাচ্চু মিয়া নিজেকে যুবলীগ নেতা পরিচয় দিয়ে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করছে। এলাকায় মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রন, চুরি, জমি দখল, চাঁদা উত্তোলনসহ বিভিন্ন অপকর্ম করে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। তার কথা কেউ না মানলে হামলা ভাংচুর মারধর ও লুটপাট শুরু করে।

সম্প্রতি বরুড়া উপজেলার শাকপুর ইউনিয়নে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে এক প্রবাসীকে পিটিয়ে গুরুতর আহত ও পরিবারের অন্যান্য নারী সদস্যদের শ্লীলতাহানীসহ অলংকার লুটপাট করে। শাকপুর এলাকার মাদকব্যবসা, চুরি সন্ত্রাসীকর্মকান্ড সহ একাধিক মামলার আসামী মোঃ বাচ্চু মিয়ার নেতৃত্বে এ হামলা ও লুটপাট করা হয়। এ বিষয়ে কুমিল্লার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আমলি আদালতে ১২ এপ্রিল মঙ্গলবার একটি মামলা দায়ের করেন ভোক্তভোগি সাথি আক্তার।

মামলার বিবরনে জানা যায়, বাচ্চু মিয়া প্রবাসী মঈন উদ্দিন মোহন একটি জমি দখল করতে গেলে স্থানীয় ও প্রশাসনের সহযোগিতায় তা করতে পারেনি। এতে সে ক্ষিপ্ত হয়ে ৫ এপ্রিল মঙ্গলবার রাত সাড়ে সাতটায় শাকপুর এলাকায় আব্দুল ওহাব মিয়ার ছেলে প্রবাসী মঈন উদ্দিন মোহন তারাবির নামাজে যাওয়ার পথে হামলা করে বাচ্চু মিয়া। দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বাচ্চু মিয়া ও তার সহযোগি আবুল কাশেম, আবুল বাশার, সুজন মিয়া, খোরশেদ আলম, কাদের হোসেন অজ্ঞাতনামা আরো কয়েকজন অতর্কিত হামলা চালিয়ে মঈন উদ্দিন মোহনকে মেরে ফেলার চেষ্টা চালায়। এসময় তাকে পিটিয়ে রক্তাত করে এবং গলা চেপে শ^াসরোধ করে হত্যার চেষ্টা করে। তাদের শোর চিৎকার ও খবর পেয়ে প্রবাসী মইনের স্ত্রী মা সহ কয়েকজন ঘটনাস্থলে আসে। এসময় আহত মঈনকে তার স্ত্রী সাথি আক্তার, মা রেজিয়া আক্তারসহ অন্যান্যরা বাঁচাতে এগিয়ে আসলে তাদের চুল টেনে হেচড়ে এলাপাথারি কিল ঘুটি ও পিটিয়ে আহত করে এবং পড়নের জামা কাপড় ছিড়ে শাররিক ভাবে লাি ত ও শ্লীলতাহানী করে। তাদের স্বর্ণালংকার ছিনিয়ে নিয়ে যায়। পরে (ত্রিপল নাইন ৯৯৯) এ কল দিলে পুলিশ এসে তাদের উদ্ধার করে।

মামলার বাদী সাথি আক্তার বলেন, এ ঘটনায় আমার আহত স্বামীকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দিতে গেলে সন্ত্রাসী বাচ্চু মিয়ার বাঁধার মুখে ফেরত এসে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করাই। বর্তমানে আমার স্বামী আংশকাজনক অবস্থায় আছে। এ বিষয়ে কোন মামলা দিলে বাড়িঘর পুড়িয়ে ফেলবে এবং জানে মেরে ফেলার হুমকি দামকি দিচ্ছে সন্ত্রাসী বাচ্চু মিয়া। আমি ও আমার পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা নিরাপত্তাহীনতায় আছি।

বাচ্চুর বিরুদ্ধে দায়ের করা বিভিন্ন মামলা থেকে জানা যায়, চোরাই হোন্ডা বেচাকেনার অভিযোগে বরুড়া থানা এএসআই মো: জাহের মোল্লা বাদী হয়ে থানায় মামলা করে যার নং- ১৩/২০১৩ইং। সরকারি চাল বরাদ্দ দেওয়ার নাম করে কা ন বিবি নামে অসহায় মহিলার ছবি ও স্বাক্ষর জাল করে জমি দখল করে। পরে ভুক্তভোগি মহিলা আদালতে মামলা করে যার নং-০৪/২০১৪ইং। শাকপুর নতুন বাজারে অন্যের জমি দখল সংক্রান্ত মামলা হয় যার নং ৩৫/২০১৩ইং। চাঁদা না পেয়ে এক তরকারী ব্যবসায়ীকে মেরে ফেলার হুমকি প্রদান করে বাচ্চু বাহিনী। পরে ব্যবসায়ী সফিক থানায় জিডি করে যার নং ২৫৪/২০১৬ইং। বরুড়া সাবেক ইউপি চেয়ারম্যানকে মারধর ও টাকা ছিনতাই ঘটনায় মামলা হয় যার নং-০২/২০১৭ইং সহ আরো অনেক মামলা রয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, মোঃ বাচ্চু মিয়া নিজেকে যুবলীগ নেতা পরিচয় দিয়ে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব ও বিভিন্ন অপকর্ম করে বেড়াচ্ছে। তার এসকল অপকর্মের কেউ প্রতিবাদ করতে সাহস পায়না। কেউ প্রতিবাদ করলে তার পরিবারের উপর করা হয় চরম নির্যাতন। বাচ্চু মিয়ার বিরুদ্ধে মাদক মামলা সহ বিভিন্ন একাধিক মামলা রয়েছে বলে জানা যায়। এসব মামলা নিয়েও সে প্রকাশ্যে নানা অপকর্ম করে বেড়াচ্ছে।

     আরো দেখুন:

পুরাতন খবর

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  

You cannot copy content of this page