বুড়িচংয়ে দুর্বৃত্তের আগুনে পুড়লো বসত ঘর

বুড়িচং প্রতিনিধি।।
কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার রাজাপুর উত্তরপাড়া মরহুম সাম মিয়ার বাড়িতে রাতের আঁধারে বসত ঘরে আগুন লাগিয়ে পুড়িয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা। শনিবার মাধ্যরাতে এ ঘটনা ঘটে। এদিকে রোববার বিকেলে এ বিষয়ে বুড়িচং থানায় অভিযোগ করেন ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার।

জানা যায়, জেলার বুড়িচং উপজেলার রাজাপুর গ্রামের উত্তরপাড়া মরহুম সাম মিয়ার পশ্চিম চৌচালা টিনের ঘরে শনিবার দিবাগত রাত ২ ঘটিকায় দুর্বৃত্তরা আগুন লাগিয়ে পালিয়ে যায়। আগুনের লেলিহান শিখা পুরো ঘরে ছড়িয়ে গেলে ছাদেক মিয়ার স্ত্রী ও তার ছেলে পিনন দেখতে পায়। তাদের চিৎকারে স্থানীয়রা আগুন নিভানোর চেষ্টা করে।ঘটনাস্থলে বুড়িচং ফায়ার সার্ভিস একটি ইউনিট এসে স্থানীয়দের সহযোগীতায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। মরহুম সাম মিয়ার ছেলে শাহ আলম ও মোঃ বাহাদুর প্রতিনিধিকে জানান,আমরা চাকরি করার কারণে শহরে থাকতে হয়। বাড়িতে আমার ভাবী ও ভাতিজা থাকেন। গতরাতে আমাদের বাপের পুরাতন ঘরে কেবা কারা আগুন লাগিয়ে পালিয়ে যায়।

ঘরে কেউ না থাকলেও মূল্যবান ফার্নিচার,কাঠ ও অন্যান্য আসবাবপত্র ছিলো তা পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এতে ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ৬ লক্ষাধিক টাকা হয়েছে। ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয়রা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার কারণে আমাদের দুইটি বিল্ডিং ঘর রক্ষা পায়।সকালে স্থানীয় চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম মাস্টার ও মেম্বার মুমিনুল ইসলাম এবং থানার পুলিশ পরির্দশন করে যায়। বাহাদুর জানান, কয়েক মাস আগে দুর্বৃত্তরা আমার দুইটি পুকুরের প্রায় ১০ লক্ষাধিক টাকার মাছ বিষ দিয়ে মেরে ফেলে। এই ভাবে একের পর এক দুর্বৃত্তরা আমার ক্ষতি করে যাচ্ছে। তারা আমার নীরবতাকে দুর্বল মনে করছে। আমি স্থানীয় সাহেব সর্দার ও প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠু বিচার চাই।

এ বিষয় বুড়িচং উপজেলা নির্বাহী অফিসার হালিমা খাতুন জানান,আগুনের খবর আমি শুনেছি, প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এসেছে। আমাদের তদন্ত কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

এ বিষয়ে বুড়িচং থানার ওসি মারুফ রহমান জানান, খবর পেয়ে থানার পুলিশ ফোর্স পরিদর্শন করে এসেছে এবং বিকেলে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার একটি অভিযোগ দায়ের করেছে।তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

     আরো দেখুন:

পুরাতন খবর

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  

You cannot copy content of this page