কুমিল্লায় পাওনা টাকা ফেরত চাওয়ায় পার্লারের মালিক স্বামী-স্ত্রী’কে পিটিয়ে আহত

স্টাফ রিপোর্টার।।
কুমিল্লার দেবিদ্বারে পাওনা টাকা ফেরত চাওয়ায় হামলার শিকার হয়েছেন পার্লারের মালিক স্বামী-স্ত্রী।

হামলায় আহত হয়ে চিকিৎসা নিতে হাসপাতালে গেলে সেখানেও হামলার ঘটনা ঘটে বলে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী দম্পত্তি।

ভুক্তভোগী পার্লারের মালিক মৌসুমী আক্তার জানান, তার পার্লারের কর্মী হালিমা বেগম ও তার স্বামী সোহেল ব্যবসা করার জন্য গত বছর ৫ লক্ষ টাকা ধার নেয়।

সম্প্রতি ধার নেয়া টাকা পরিশোধ করার কথা বললে হালিমা চাকুরী ছেড়ে চলে যায়। পরবর্তীতে টাকা ফেরৎ না দিয়ে উল্টো তানিয়া সুলতানা বিথি ও কোহিনুর আক্তার সুমিসহ কয়েকজন স্থানীয় লোকজনকে পাঠিয়ে মৌসুমী আক্তার হুমকি-ধমকি দেয়।

পাওয়া টাকা ফেরৎ না দিয়ে একাধিকবার হুমকী ধমকী দেয়ায় ভূক্তভোগী মৌসুমী আক্তার দেবিদ্বার থানা ও কুমিল্লা পুলিশ সুপারের নিকট অভিযোগ দেয়।

এদিকে অভিযোগের কথা জানতে পেরে স্থানীয় মোখলেছসহ কয়েকজন সোমবার মৌসুমী আক্তারের স্বামী ও ছেলের উপর হামলা করে আহত করে। আহতদের দেবিদ্বার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানেও হামলা করে মাথা ফাটিয়ে দেয়া হয়। দেবিদ্বার হাসপাতালে চিকিৎসা না কারতে পরে আহতদের কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।

হামলার শিকার মৌসুমী আক্তারের স্বামী নজরুল ইসলাম বলেন, পাওনা টাকার বিষয়ে আদালতে মামলা করা হয়েছে। মামলাটি বর্তমানে পিবিআই তদন্ত করছে।

প্রত্যক্ষদর্শী কাজী তারিফুল ইসলাম সুমন বলেন, অভিযোগের কথা জানতে পেরে মোখলেছ, তানিয়া সুলতানা বিথি ও কোহিনুর আক্তার সুমিসহ কয়েকজন বাসায় হামলার চেষ্টা করে। পরে মৌসুমী আক্তারের স্বামীকে ইট দিয়ে মাথায় আঘাত করলে মাথা ফেটে যায়, তখন এলোপাথারী মারধর করে তারা।

অভিযুক্ত হালিমা বেগম মোবাইল ফোনে জানায়, হামলার ঘটনার সাথে তিনি জড়িত নন, উপস্থিত লোকজন তাদের উপর হামলা করেছে।

এ বিষয়ে দেবিদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নয়ন মিয়া জানান, বিষয়টি তিনি অবগত আছেন, এ বিষয়ে উভয়ে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দিয়েছে। মারধরের ঘটনায় কেউ অভিযোগ করলে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।

     আরো দেখুন:

পুরাতন খবর

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  

You cannot copy content of this page