কুমিল্লায় শীর্ষ সন্ত্রাসী বোমা আশিকের গ্রেফতার অভিযানে পুলিশের উপর হামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক।।
কুমিল্লা শহরতলীর ধর্মপুর এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী ১৭ মামলার আসামী বোমা আশিকের গ্রেফতার অভিযানে পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় ইউপি মেম্বার সহ ৮০ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে।

আসামীদের মধ্যে ৩০ জন নামীয় এবং অজ্ঞাতনামা ৪০-৫০ জন। শনিবার রাতে ধর্মপুর রেলগেইট ও ধর্মপুর ডিগ্রী কলেজ এলাকায় পুলিশের উপর হামলায় পৃথক ঘটনায় রবিবার কোতয়ালী মডেল থানার এসআই মো.মহিউদ্দিন শেখ বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন। এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে এজহারনামীয় ৩ আসামীকে। এ ঘটনায় এলাকার বর্তমান ইউপি মেম্বার আবদুল লতিফ, তাঁর পুত্র আসন্ন নির্বাচনে মেম্বার প্রার্থী আবদুল হান্নান সোহেলসহ তাঁর অনুসারীরা আসামী ও গ্রেফতার হওয়ার ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় চলছে।

স্থানীয় সূত্র ও পুলিশ জানায়, এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী বোমা আশিক মাদক দ্রব্যের চালান নিয়ে ধর্মপুর রেলগেইট এলাকায় মন্টি ষ্টোরে অবস্থান করছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার রাত পৌনে ১০ টার দিয়ে অভিযান চালায় পুুলিশ। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায় আশিক। এসময় ১৩০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট ও তাঁর ব্যবহ্রত একটি মটর সাইকেল জব্দ করে পুলিশ। আশিককে গ্রেফতার করতে পুলিশ পুনরায় রাত পৌনে ১১ টার দিকে ধর্মপুর ডিগ্রী কলেজ রোড এলাকায় গেলে বোমা আশিক ও আসন্ন ইউপি নির্বাচনে ২নং ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী আবদুল হান্নান সোহেলের নেতৃত্বে পুলিশের উপর হামলা চালানো হয়। ইট-পাটেকেল আঘাতে কোতয়ালী থানা পুলিশের এসআই মো.মহিউদ্দিন শেখ, এসআই মিঠুন সরকার, এসআই চিরঞ্জীব বড়–য়া, এএসআই উৎপল দাস সহ কয়েকজন পুলিশ আহত হন।

ডিগ্রী কলেজ রোডের লাকি ডেকোরেটরের সামনে রাত পৌনে ১১ টা থেকে রাত ১২ টা পর্যন্ত এ ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশ ১৬ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে। খবর পেয়ে আরও থানা পুলিশ ও ডিবি পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে অভিযান চালায়। এসময় ধর্মপুর গ্রামের আবদুল লতিফ মেম্বারের ছেলে আবদুল মান্নান সুমন (৩৮), নুরুল ইসলামের ছেলে তাজুল ইসলাম (২০), গাংচর এলাকার নোয়াব মিয়ার পুত্র সাজ্জাদ বাবু(২৮) গ্রেফতার করে।

এঘটনায় শনিবার সকালে কোতয়ালী মডেল থানার এসআই মো.মহিউদ্দিন শেখ বাদী হয়ে ধর্মপুর ওয়ার্ডের বর্তমান মেম্বার আবদুল লতিফ মেম্বার, তাঁর পুত্র আসন্ন নির্বাচনে তালা প্রতীকের মেম্বার প্রার্থী আবদুল হান্নান সোহেল, ধর্মপুর এলাকার মোহাম্মদ আলী ড্রাইভারের পুত্র আশিক ওরফে বোমা আশিক (৩৮) সহ ৩০ জন নামীয় ও অজ্ঞাতনামা ৪০-৫০ জন বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

কোতয়ালী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ কমল কৃঞ্চ ধর জানান, বোমা আশিক একজন শীর্ষ সন্ত্রাসী। চাঁদাবাজি, মাদক কারবারী সহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী ঘটনায় তার বিরুদ্ধে ১৭ টি মামলা রয়েছে। আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কয়েকটি কেন্দ্রে সে সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের প্রস্তুতি নিয়েছিল এমন গোপন সংবাদও আমাদের কাছে রয়েছে। তাকে গ্রেফতার করতে পুলিশ সক্রিয় রয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কোতয়ালী মডেল থানার এস আই মিঠুন সরকার জানায়, ধর্মপুর এলকার মাদক ব্যবসায় মুল হোতা বোমা আশিক। তাকে সহ অভিযুক্ত আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

     আরো দেখুন:

পুরাতন খবর

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  

You cannot copy content of this page