সদর দক্ষিণ মডেল থানার উদ্দেগে ৭ই মার্চ উদযাপন

মোঃ মাজহারুল ইসলাম।।
ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে ও বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের চূড়ান্ত সুপারিশ প্রাপ্তিতে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ মডেল থানার আয়োজনে আনন্দ উদযাপন অনুষ্ঠান রবিবার বিকেলে সুয়াগঞ্জ টি.এ হাই স্কুল এন্ড কলেজে কেক কাটা ও আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কুমিল্লা সদর দক্ষিণ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ দেবাশীষ চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান গোলাম সারওয়ার।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সদর দক্ষিণ উপজেলা নির্বাহী অফিসার শুভাশিস ঘোষ,সদর দক্ষিণ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল হাই বাবলু,বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ প্রফেসর এটিএম ইউনুস,উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসিমা আক্তার পুতুল,কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ আব্দুল মমিন মজুমদার। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কুমিল্লা সদর দক্ষিণ মডেল থানার সেকেন্ড অফিসার খাদেমুল বাহার।

বক্তারা বলেন,৭ই মার্চ বাঙ্গালী জাতির দীর্ঘ স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসের অনন্য একটি দিন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ই মার্চের ভাষণ পরবর্তীতে বাঙ্গালী জাতির মাঝে স্বাধীনতা সংগ্রামের বীজমন্ত্র হয়ে পড়ে। এ ভাষণ শুধুমাত্র রাজনৈতিক দলিল’ই নয়,এ ভাষণ বাঙ্গালী জাতির স্বাধীনতার দিক নির্দেশনা। বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণেই মূলত মহান স্বাধীনতার ঘোষণা করা হয়েছিল।

বক্তারা আরো বলেন,এক দশকের কিছু আগে বাংলাদেশ অঙ্গীকার করেছিল, স্বাধীনতার ৫০ তম বার্ষিকী ২০২১ সালের মধ্যে প্রযুক্তিগতভাবে অগ্রসর জাতিতে নিজেদের রূপান্তর ঘটানো হবে। অনেকেই বিশ্বাস করেনি যে, এটি আমরা করতে পারব। এই প্রকল্পের প্রধানতম ব্যক্তি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন ক্ষমতায় আসেন, সেই ২০০৯ সালে দেশে মাত্র ২ কোটি মানুষের হাতে মোবাইল ফোন ছিল। কিন্তু এখন ১২ কোটি মানুষের হাতে মোবাইল ফোন রয়েছে এবং আরও কয়েক কোটি মানুষ প্রত্যন্ত অঞ্চলেও দ্রুত গতির নেটওয়ার্কে যুক্ত।

এর ফলে অগনিত মানুষের জীবনের উন্নয়নও সাধিত হয়েছে। সরকার সাড়ে ৮ হাজার ডিজিটাল সেন্টারের নেটওয়ার্ক তৈরি করেছে যা বলতে গেলে আজীবন অনলাইন সেবা দিচ্ছে। জন্মনিবন্ধন, কর্মসংস্থান এবং অনলাইন স্বাস্থ্যসেবা এই ডিজিটাল সেবার আওতাধীন। অনেক জাতীর কর্মসূচিও অনলাইনের অন্তর্ভুক্ত।

গত বছর করোনা ভাইরাসের সময় লকডাইনে সরকারি সেবায়ও কোনো ব্যাঘাত ঘটেনি। সদর দক্ষিণ মডেল থানার এস আই সোহেল এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সদর দক্ষিণ উপজেলার পশ্চিম জোড়কানন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হাসমত উল্লাহ হাসু, চৌয়ারা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী আবুল কালাম আজাদ সোহাগ,পূর্ব জোড়কানন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এম হারিছ মিয়া, গলিয়ারা উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ওবায়দুর রহমান,সদর দক্ষিণ উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এটিএম ইদ্রিস,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহাদাত হোসেন সেলিম,আইন বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মান্নান (এলএলবি,এলএলএম),দপ্তর সম্পাদক ডাঃ আমিনুল ইসলাম।

সুয়াগঞ্জ টি.এ হাই স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোজাম্মেল হক চৌধুরী,উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-প্রচার সম্পাদক হাজী আব্দুল মমিন,সদস্য জাফর আহম্মেদ, পশ্চিম জোড়কানন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি এম.এ করিম,পূর্ব জোড়কানন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তফিকুল ইসলাম রিপন,সদর দক্ষিণ উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র সদস্য মমিনুল ইসলাম লিটন, যুবলীগ নেতা বিল্লাল হোসেন,সদর দক্ষিণ উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল্লাহ আল মামুন অপু । সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়।

     আরো দেখুন:

পুরাতন খবর

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০