সংরক্ষিত মহিলা এমপিদের অনেকেই ছিঁটকে পড়বেন; নতুনদের নিয়ে স্মার্ট বাংলাদেশ

শান্তুনু হাসান খান
দ্বাদশ সংসদের ৫০টি সংরক্ষিত নারী আসনে আগামী ১৪ মার্চ ভোটের দিন রেখে তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। ২৭ তম এই কমিশন সভা শেষে নির্বাচন কমিশন সচিব মো. জাহাংগীর আলম জানান, সংরক্ষিত আসনে নির্বাচনে অংশ নিতে ১৮ ফেব্রুয়ারি সকাল ৯ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত মনোনয়নপত্র জমা দেওয়া যাবে।

১৯ ও ২০ ফেব্রুয়ারি বাছাইয়ের পর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করা যাবে ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। এরপর ভোট ১৪ মার্চ। এ নির্বাচনে ভোটের জন্য একটি দিন রাখা হলেও ফল জানা যায় তার আগেই। ৫০টি সংরক্ষিত নারী আসনের বিপীতে দল ও জোটগতভাবে সমান সংখ্যক প্রার্থী মনোনয়ন দেয়া হবে বলে প্রত্যাহারের সময়সীমা পার হওয়ার দিনই তাদের বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত ঘোষণা করা হতে পারে। বিদ্যমান আইন অনুযায়ী, সরাসরি ভোটে জয়ী দলগুলোর আসন সংখ্যার অনুপাতে নারী আসন বণ্টন করা হয়। সংসদের সাধারণ আসনে নির্বাচিত সংসদ সদস্যরা সংরক্ষিত আসনের নির্বাচনের ভোটার হন। সংসদে নৌকা প্রতীকে জয় পাওয়া ২২৫ এমপির হিসাবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ আনুপাতিক হারে পাচ্ছে ৩৮টি সংরক্ষিত আসন। ৬২ স্বতন্ত্র এমপিদের সঙ্গে মতৈক্য হওয়ায় তাদের ভাগের ১০ আসনেও আওয়ামী লীগ প্রার্থী দেবে। বাকি দুটি সংরক্ষিত আসন পাচ্ছে প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পাটি।

দ্বাদশ সংসদের প্রথম অধিবেশনে শুরু হয়েছে ৩০ জানুয়ারি। কাজ দ্রুত শেষ হলে এ অধিবেশনেই সংরক্ষিত নারী সাংসদরা যোগ দেওয়ার সুযোগ পেতে পারেন। সেই আলোকে সারাদেশ থেকে সংরক্ষিত মহিলা আসনের প্রার্থীতা এবার কম নয়। প্রায় ১৫৬৪ জন ফরম সংগ্রহ করেছেন। অনেক বড় জেলা হিসেবে কুমিল্লায় ফরম সংগ্রহ করেছেন প্রায় ৪৬ জন মহিলা প্রার্থী। এর মধ্যে চূড়ান্ত পর্যায়ে আছেন ১৮ জন মহিলা প্রার্থী। এর মাঝে কেন্দ্রীয়ভাবে আলোচনায় আছেন ৪ জন নতুন প্রার্থী। এর মাঝে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি ও ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট জাহান আরা বেগম (রানু), কুমিল্লা দেবিদ্বারের অন্যতম শিরিন সুলতানা। প্রয়াত আইনমন্ত্রী আবদুল মতিন খসরুর স্ত্রী সেলিমা সোবাহান খসরু, প্রয়াত এমপি হাসেম খানের মেয়ে ব্যারিষ্টার নাজিয়া হাসেম তানজিন অন্যতম।

আর সেই আলোকে এবার কুমিল্লা থেকে ১৮ জন মহিলা সংরক্ষিত আসনের এমপি আগ্রহ প্রকাশ করে ফরম সংগ্রহ করেছেন। তবে এর মধ্যে অনেকে ছিটকে পড়বেন নমিনেটড হওয়ার পথ থেকে। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা চাইছেন অত্যন্ত ক্লিন ইমেজ, মার্জিত ও শিক্ষিত যাঁরা এবার তাদেরকেই প্রাধান্য দিয়ে তাদেরকে দিয়ে দ্বাদশ সংসদকে ঢেলে সাজানো হবে। এই দিকে কুমিল্লা উত্তর জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাথে দীর্ঘদিন কাজ করে আসছেন একজন শিরিন সুলতানা। ২ বারের জেলা পরিষদের সদস্য ছাড়াও এলাকায় বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত। তার বর্ণাঢ্য জীবনের আলোকে এবার দলের সভাপতি তথা জননেত্রী শেখ হাসিনা সহ দলে অনেক নীতি নির্ধারকদের পছন্দের তালিকা রয়েছেন তিনি।

অপর দিকে এডভোকেট জাহান আরা বেগম তিনিও পছন্দের তালিকায় আছেন বলে জানা গেছে। তিনি উচ্চ শিক্ষিত। তৃণমূল থেকে উঠে এসে কুমিল্লা ব্রাহ্মণপাড়া সহ জেলাতে আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত আছেন। পাশাপাশি আবদুল মতিন খসুরুর সহধর্মীনী সেলিমা সোবাহান ও হাসেম খানের মেয়ে ব্যারিস্টার নাজিয়া হাশেম তানজি অন্যতম। এই ৪ জন স্ব-স্ব ক্ষেত্রে নিজেদের অস্তিত্ব প্রমাণ করতে সচেষ্ট। তবে এবার বাদ পড়তে পারেন তাঁরাই- যারা একবার, দু’বার সংসদ সদস্য ছিলেন। তাদের দিয়ে নয়, নতুনদের নিয়ে সংসদ বেগবান করতে সচেষ্ট।

যারা এইবার ছিটকে পড়বেন সম্ভাবনায়-তার মাঝে রয়েছেন মহিলা আওয়ামী লীগের জোবেদা খাতুন পারুল, আঞ্জুম সুলতানা সীমা, এ্যারোমা দত্ত ও হোমনার সেলিমা আহমেদ মেরি। এরা সবাই সাবেক সংসদ সদস্য ছিলেন। অতীতে তাদের কর্মকান্ড জনগণ খুব একটা দৃশ্যমান দেখতে পাইনি। অনেক প্রার্থীদের মাঝে রিপোটেশন ভালো নয়-এমন প্রার্থী বেশ কয়েকজন। তাদের মাঝে মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কোহিনূর বেগম, জেলা পরিষদ সদস্য ফাহমিদা জেবিন, জেলা পরিষদ সদস্য নাসরিন আক্তার মুন্নি, চৌদ্দগ্রামের আয়েশা জামাল শিমু ও মুরাদনগরের আসমা বেগম রত্না।

অনেকে বলছেন এবারের পছন্দের তালিকা স্মার্ট বাংলাদেশ নির্মানে নতুনদের প্রাধান্য দেওয়া হবে। সেই লক্ষ্যে আগামী সাপ্তাহে প্রধানমন্ত্রী কুমিল্লার মাননীয় সংসদদের নিয়ে একটি বৈঠক করবেন বলে জানা যায়। সেই বৈঠকে হয়তো ৪ জনের নাম উঠে আসতে পারে। বাকীদেরকে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দলের জন্য কাজ করা নির্দেশনা দিতে পারেন। দিয়ে তাদেরকে এলাকায় কাজ করতে নির্দেশনা দিবেন বলে আশা করা যায়। যাঁরা এবার ছিটকে পড়বেন তারা শুধু বিগত দিনের রুটিন ওয়ার্কের বাইরে তেমন কিছু দৃষ্টান্ত রাখতে পারেননি। ফলে নতুন সংসদ সদস্যদের এগিয়ে যাওয়ার পথটি সুগম হলো। আগামী সাপ্তাহে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ৪৮ জন আওয়ামীলীগ ও ২ জন জাতীয় পাটির সদস্যদের নিয়ে বসবেন। আর তখোনি গ্রীন সিগন্যাল পেয়ে যাবেন অনেকেই।

এদিকে সবাই বলছেন একই কথা- ‘আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস-সিলেকশেন কমিটি তথা আমাদের নেত্রী-জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাদের অতিতের পলিটিক্যাল ক্যারিয়ার ও স্ট্যাটাস বিবেচনা করে ইনশাল্লাহ্ দ্বাদশ সংসদে সংরক্ষিত মহিলা আসেন এমপি হিসেবে কুমিল্লা অনেককেই নিয়োগ দেবেন বলে আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস। আর সেই বিশ্বাসের উপর ভর করে আমরা সবাই আগামী দিনে জননেত্রী শেখ হাসিনার সকল কর্মপন্থা বাস্তবায়নের মধ্যে দিয়ে ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ নির্মাণে কাজ করে যাব।’

     আরো দেখুন:

পুরাতন খবর

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯  

You cannot copy content of this page