কুমিল্লায় শিক্ষক দিবসে বর্নাঢ্য শোভাযাত্রা; মুজিববর্ষে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের আহবান

নিজস্ব প্রতিবেদক।।
কুমিল্লায় নানা আয়োজনে বিশ্ব শিক্ষক দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে মঙ্গলবার সকাল ১০টায় নগরীতে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি (বিটিএ) কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলা শাখা। শোভাযাত্রাটি কুমিল্লা টাউন হল থেকে শুরু হয়ে নগরীর প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে টাউন হল মিলনায়তনে এসে আলোচনা সভায় মিলিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি (বিটিএ) কুমিল্লা জেলা শাখার সাধারন সম্পাদক ও হাউজিং এস্টেট স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো. জহিরুল আলম।

এসময় শিক্ষক নেতারা বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ভিশন ২০৪১ বাস্তবায়নে কাজ করছে কুমিল্লার শিক্ষক সমাজ। জাতির পিতা ১৯৭৩ সালে যুদ্ধবিধ্বস্ত সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশে দেশের প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থাকে জাতীয়করণ করেছিলেন। আমরা বিশ্বাস করি জাতিরজনকের সুযোগ্য কণ্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থ্যায় আরেক মাইলফলক রচিত হবে। মুজিববর্ষ অবিস্মরণীয় করে রাখতে বঙ্গবন্ধুর শিক্ষাদর্শন তথা শিক্ষাব্যবস্থা অবিলম্বে জাতীয়করণ করতে হবে। এছাড়া তারা মুজিববর্ষে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের পাশাপাশি সরকারি-বেসরকারি শিক্ষকদের বেতনবৈষম্য দূরীকরণ, শতভাগ ঈদ বোনাস চালুর দাবি জানান।

বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি (বিটিএ) কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলা শাখার সভাপতি আলেকজান মেমোরিয়াল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ আবদুল মান্নান এর সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক ফরিদা বিদ্যায়তনের প্রধান শিক্ষক মো. হানিফ মজুমদারের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, ভিক্টোরিয়া কলেজিয়েট হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো.ঈসমাইল, সুবরাতি শাহদাজী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নূরে আলম সিদ্দিকী,মাঝিগাছা আখতারুজ্জামান উ”চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাহিদা সুলতানা, সংরাইশ সালেহা গার্লস হাই স্কুলের সিনিয়র শিক্ষক আজিম খান রাজু।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, বি এ মুসলিম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু তাহের, সুবর্নপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সহিদুল ইসলাম, রত্নাবতী আলী আমেনা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হযরত আলী, আছিয়াগনি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনিরুল ইসলাম বাবুল, বিবির বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাকির হোসেন ভূইয়া, দুর্লভপুর মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম, ধনুয়াইশ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বাবু দিগন্ত পাল, দিদার মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মহাদেব সাহা, শৈলরানী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইয়াছমিন বেগম, কমলাপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আকতারুজ্জামান, বানাশুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফারুক আহম্মেদ, ইসলামিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরজাহান বেগম, রাজ্জাক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহমুদা সুলতানা, ভূবনঘর আব্বাসিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম সারোয়ার, তাজ রৌশন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাকির হোসেন, মডার্ণ হাই স্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষক আবুল কাশেম, কুমিল্লা হাই স্কুলের সহকারী শিক্ষক মো. ওয়াজেদ ভূইয়া সহ কুমিল্লা মহানগরী ও আদর্শ সদর উপজেলার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সহকারী প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা সভায় বক্তারা আরও বলেন, এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের প্রতিমাসে এক হাজার টাকা বাড়ি ভাড়া ও পাঁচশ টাকা চিকিৎসা ভাতা দেওয়া হয়। বর্তমান বাজারে এ অর্থ দিয়ে জীবনযাপন করা অসম্ভব। ঈদে সরকারি শিক্ষকদের বেতনের শতভাগ ঈদ বোনাস দিলেও আমাদের ২৫ শতাংশ দেওয়া হয়। ঈদ সবার জন্য সমান, অথচ সেখানে বৈষম্য তৈরি করা হয়েছে। এসব সমস্যা দূরীকরণের একমাত্র পথ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ। এটি করলে সব অনিয়ম-দুর্নীতি বন্ধ হবে। যদি জাতীয়করণ করা সম্ভব না হয় তবে এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের অবিলম্বে বেতনবৈষম্য দূর করতে হবে।

উল্লেখ্য,১৯৯৫ সাল থেকে জাতিসংঘের অঙ্গ সংস্থা ইউনেস্কোর উদ্যোগে প্রতিবছর ৫ অক্টোবর এ দিবসটি পালিত হয়। এ বছর বিশ্ব শিক্ষক দিবসের প্রতিপাদ্য “ শিক্ষা পুনরুদ্ধারের কেন্দ্রবিন্দুতে শিক্ষক।

     আরো দেখুন:

পুরাতন খবর

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  

You cannot copy content of this page